Month: June 2017

A Heart Break and A New Love Story

২০০৯ এর শেষ, শীতের ঠান্ডার সাথে সম্পর্কের শীতলতাও আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে নিয়েছে। চলে গেছে বহু মুহূর্ত সময়ের সাথে চিরতরে। এক চোখ ফাটা হাহাকার শুধু রয়ে গেছে শূন্যতাকে সম্বল করে। জীবনের শেষ ১.৫/২ টি বছর হঠাৎই অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়েছিল ঘটে চলা ঘটনার আকস্মিকতায়। ২০০৯ শেষ হতে হতে অনেক কিছুই ততক্ষনে বাস্তবের সামনে দাঁড়িয়ে গেছিল, আর তার মধ্যে এটাও ছিল স্বপ্নের মসৃণ গাঁথার দিন শেষ। হঠাৎই বন্ধু হারানোর যন্ত্রনা ভেতরটা খাঁখাঁ করছিল, কিন্তু কাউকে কিছু বলার ছিল না। কিছু কাছের বন্ধুরা শুধু জানত, সহানুভূতি বোধ করত, কিন্তু কারো সাথেই সেই জায়গাটা শেয়ার করার উপায় ছিল না যেটা শুধু আমাকেই নিভৃত্য অন্তরালে নিয়ে পুড়তে হত। শেষ সেদিনটার পরে কয়েক মাস কেটে গেছে। ধীরে ধীরে জীবনের ছন্দে আবার ফিরতে চেষ্টা করছি, কিন্তু গতি বলতে সেরম কিছু ছিল না। নিত্যদিনের নিয়ম মত অফিস যেতাম, কাজ করতাম, সন্ধ্যের ভিড় ঠেলে ঘরে ফিরতাম। আলাদা করে নিজের কোন অস্তিত্ব খুঁজে পেতাম না। কিছুটা জড় পদার্থের মতই হয়ে গেছিল, সবই ছিল, চলছিলও। এরমধ্যে আমার হাতে উঠে এসেছে আমার দ্বিতীয় ক্যামেরা D90। প্রথমটি আমারই এক কলিগ্‌কে দিয়ে আমার দ্বিতীয় ক্যামেরা হাতে তুলে নিয়েছিলাম। তা ছবি যে …

প্রথম ট্রেন জার্নি paper boat-এর ভাষায়

ইদানীংকালে পেপারবোট শুধু নিজেদের একটা স্বতন্ত্র জায়গাই তৈরী করেনি, নিজেদের সচিত্র পরিভাষায় আমাদের মনকেও ছুঁয়ে গেছে, নিয়ে গেছে আমাদের ছোটবেলাকার সেই সব দিনগুলোতে যা আমাদের আবার নতুন করে ভাবতে শেখায়, উল্টে দেখায় স্বৃতির পাতাগুলোকে। পেপারবোটের নতুন ফিল্ম শ্রদ্ধাস্বরূপ সেই সবথেকে পুরাতন, বৃহত্তর এবং ম্যাজেস্টিক ইন্সটিটিউশনের প্রতি, যা প্রথম আমাদেরকে শেখায় ভ্রমনের মজা জার্নিতে, আর গন্তব্য যেখানে গৌন।