Latest, North Bengal, Photologue
Leave a Comment

Photologue: Sandakphu – VI

গুরদুমের পরবর্তী দিন, আরো নিচে নামার পালা, এদিনের গন্তব্য শ্রীখোলা (যদিও দূরত্ব অনেক কম, ৬ কিমি)।

সকাল হতে ধীরে সুস্থে আমরা পাড়ি দিলাম। কোন তাড়া ছিল না এদিন, কম দূরত্বের জন্যে।

DSC_0469

আগের দিনের ক্লান্তি এখন অনেক হালকা হলেও পাহাড়ি পথের চড়াই ওতরাই পায়ের মাংসপেশীর মধ্যে আবার টান দিতে শুরু করল। তবে আগের দিনের মত মুহূর্মুহূ ভাঙা ওতরাই এদিনে আর তেমন ছিল না।

DSC_0471

জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন ছোট ছোট নেমে আসা ঝর্ণাকে পাশে রেখে, নানান গাছগাছালি সম্বন্ধে জানতে জানতে সকলেই মোটামুটি খোস মেজাজেই এগিয়ে চললাম। পিটারের মাঝে মধ্যেই সাবধানবানী আমাদের আরো পথ চলতে সাহায্য করছিল – বসবেন না, বসবেন না চলতে থাকুন – বসলেই আরো কষ্ট হবে হাঁটতে।

DSC_0472

DSC_0473

DSC_0483

এবং একটা সময়ে (দুপুরের আগেই!) আমরা গিয়ে পৌঁছলাম আমাদের গন্তব্য শ্রীখোলায়। অস্বীকার করব না, হঠাত চলে আসায় কেমন একটু আশাহত হলাম। শরীর এবং মন যেন তৈরী হয়ে ছিল আরো চলবার জন্য, আরো একটু কষ্ট করার জন্যে।

DSC_0491

শ্রীখোলার কিছু ট্রেকার্স হাট, এর মধ্যে প্রথমটাতে আমাদের আস্তানা পড়েছিল

DSC_0498

একটি বিশাল পরিত্যক্ত ট্রেকার্স হাটের সম্মুখভাগ

DSC_0536

নিজেদের ঝোলাঝুলি ফেলে আমরা বেরিয়ে পড়লুম আশেপাশে সন্ধানী চোখে, কিছু সন্ধানের আশায় (অবশ্যই এই ক্ষেত্রে এখানের প্রাকৃতিক রূপরেখা)।

DSC_0500

অদুরবর্তী একটি ঝোলা ব্রিজ। মনটা বড়ই আলহাদিত হয়ে গেল (বলতে পারি) ঃ)

DSC_0505

DSC_0511

DSC_0513

দুপুরের খাওয়া দাওয়ার পরে কারোরি তেমন ইচ্ছা ছিল না বিছানায় শুয়ে দুপুরটা কাটাবার। সকলেই প্রকৃতির আরো কিছু আস্বাদ পাবার আশায় বেরিয়ে পড়লাম, আর এইতো শেষ দিন..

DSC_0515

অয়নের ওপর এক অমানবিক বল এর মধ্যে ভর করেছে

নেমে আসা জলের প্রাকৃতিক জলাশয়ে পিটার এবং অন্যান্যরা কিছু আপন সময় কাটিয়ে দিল হাতে তৈরী ছিপ আর মাছের আশায়। প্রকৃতি এখানে বড়ই শান্ত, কোন তাড়া নেই এখানে। কাটানোর জন্যে যেন অফুরান্ত সময়, আর বুক ভরা মুক্ত হাওয়া।

DSC_0527

DSC_0532

DSC_0542

DSC_0544

দোতলার ডাইনিং রুম (ট্রেকার্স হাটে)।

DSC_0537

দিন শেষের বার্তা অবশেষে। পরের দিন ঘরে ফেরার পালা।

DSC_0547

.

রের দিন সকাল সকাল সব কিছু গুছিয়ে আবার রাস্তায় বেরিয়ে পড়া। তবে আজকে আর কোথাও থাকা নয়, আজকে ফেরার পালা।

আমাদের গন্তব্য ৭ কিমি দূরে রিম্বিক। তবে আজ অনেক সতেজ আমরা, পায়ের কামড়ও যেন সেভাবে ছুঁতে পারছে না আমাকে। আজ আমি অনেক বিশ্বাসী, আজ আমি আরো আরো পথ অতিক্রম করতে পারি, সে বিশ্বাস এবং ভরসা যেন দুটোই এসে গেছে আজকে। এক-দো-এক, এক-দো-এক করে করে আমরা এগিয়ে চললাম।

DSC_0551

DSC_0554

DSC_0556

কয়েক ঘন্টার মধ্যে আমরা ছোট একটি লোকালিটের মধ্যে এসে পড়লাম। পেছনে তখন ফেলে আসা পাহাড়, জঙ্গল, যেখানে ওই সুউচ্চ স্থানে কালকেও আমরা ছিলাম।

ছোট ছোট স্কুল পড়ুয়া, যান-বাহন সব দেখা দিতে শুরু করেছে এখন। এখান থেকেই আমাদের গাড়িতে ওঠা, পিটারকে মানেভঞ্জতে নামিয়ে দিয়ে আমাদের আরো এগিয়ে যাওয়া, শিলিগুড়ির দিকে, আজকেই।

DSC_0557

DSC_0560

DSC_0558

DSC_0564

এর পরে একটি শেয়ারের ভ্যানে সওয়ার হয়ে আরো আরো সুন্দর মাঠ-ঘাট ভ্যালি-পাহাড়কে পিছনে ফেলে আমরা এগিয়ে গেলাম আমাদের গন্তব্যের দিকে, যা শেষ হবে আমাদের চেনা শেষ না হওয়া ব্যাস্ততার শহরের সীমানায়।

.

সমাপ্ত।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s